(১৫)


কোলকাতা গেছিলাম ব্যক্তিগত কাজে- একটা ব্যাপার দেখে বেশ ভালো লাগল এবং মনে আনন্দও হল।

বাঙ্গালীকে যদি এই মুহুর্তে জিজ্ঞাসা করা হয় তার আইডল কে? অন্ততঃ ৭০% উত্তর আসবে সৌরভ গাঙ্গুলী। সত্যি, এই মাছ ভাত খাওয়া ক্ষীণকায় বাঙ্গানীর মধ্য থেকে ওইরকম সিংহহৃদয় পুরুষ কোথাথেকে এসে বাঙ্গালীর মনে একবাক্স রূপকথার জন্ম দিল সেটা বেশ ভাববার বিষয়।

তা সৌরভের সুগন্ধ তো দশ বছর পরই ইতিহাসের পাতার চলতে চলল! তারপর? বাঙ্গালীর এই দোষ, গুরুভঞ্জনা করতে করতে ভুলে যায় এর পর কি? এর পর কে? প্রতিভার আঁতুরঘর হিসাবে পরিচয় তো কোনদিনই দিতে পারবে না কিন্তু তবুও ভবিষ্যত পরিকল্পনায় কেন যে এই রকম লবডঙ্কা!

তা এবার গিয়ে বেশ নিশ্চিন্ত হলাম! বাঙ্গালী সৌরভের উত্তরসূরী পেয়ে গেছে- একদম একরকমই মহারাজার মতো তার ব্যাটিং স্টাইল, খালি চার আর ছয়। এক- দুই-এর বালাই নেই! রানিং বিটুইন দ্য উইকেট খুবই খারাপ প্রায়শই রান আউট হয় কিম্বা করে! তবে বিপক্ষকে ছারখার করা ব্যাটিং- সর্ট অফ লেংথ হলেই চার আর একটু বেশী লম্বা লেংথ হলে তো কথাই নেই- ‘বাপী বাড়ি যা’ ছয়! এখন আবার নতুন নতুন গেট আপ- যেন দাদাগিরি-র শো হচ্ছে! কি বিশ্বাস হচ্ছে না? নাকি তর সইছে না জানার জন্য?

পাঠককুল মনে করছেন যে আমি কি জহুরীর চোখ নিয়ে কোন নতুন তারকার জন্ম দেখে এলাম নাকি স্রেফ Oversmartness দেখাচ্ছি লেখা বেচবার জন্য!

রহস্যটা সমাধান করেই দি- কোলকাতার বুকে গোকুলে যে বাড়িছে সে আর কেউ নয় নবরূপে Public Bus!! চার আর ছয় ছাড়া আর কোন কথা নেই। চার টাকা আর ছ টাকা! সেদিন এক বাসে আমার সহযাত্রী বলে উঠলো – ভাই একটা চার একটা ছয়!’ আমি বলতে যাচ্ছিলাম সিঙ্গল নেবে না?

শেষে আর না থাকতে না পেরে ভাই-এর সঙ্গে একটা short distance-এর journeyতে কন্ডাক্টরকে বলে signal দেখালাম দু আঙ্গুল দেখিয়ে তারপর বাউন্ডারী দেখালাম মানে দুটো চার টাকা আর কি- দিয়েছিলাম দশ টাকার একটা নোট- ভালো মানুষের পো কন্ডাক্টর কি বুঝলো কে জানে- একটা চার আর একটা ছয়ের টিকিট দিল বলে আমি ভাবলাম আপনি আর পয়সা ফেরত চাইছেন না! বুঝুন কান্ড!

তবে এই নব্যতারকা যে সৌরভের থেকে দীর্ঘস্থায়ী হবে সে বিষয়ে সন্দেহ নেই। কমপক্ষে ১৫ বছর- অন্ততঃ পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিধান তো সেই রকম-ই!

শুভেচ্ছা রইলো কোলকাতাবাসী এবং এই নতুন তারকার প্রতি। আর হ্যাজালাম না!

প্রয়োজনহীন পুনশ্চঃ কোলকাতায় গিয়ে এক অর্কুট বন্ধুর সঙ্গে আলাপ হল- যিনি ছোটবেলায় গলন্ত মোম ফেলে মশা মেরে এখন আত্মগ্লানিতে ভুগছেন।

প্রঃ পুঃ২ গত পাঁচদিন স্রেফ টি শার্ট পড়েই কাটল- এখন দিল্লীর ঠান্ডায় ফিরে এসে বেশ আরামে আছি।

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s