(১৮)


অফিসের ক্যান্টিন জলে ভেসে গেছে। না, না, দিল্লীতে বৃষ্টি হয় নি! ক্যান্টিনের সাপ্লাই পাইপ ফেটে গেছে- জুতোর শুকতলা অব্ধি জল টলটল করছে। হৈ হৈ কান্ড রৈ রৈ ব্যাপার। আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে প্রচুর মহিলা অফিসকর্মী ফিস্ট করবেন বলে ব্যালেরিনার ভঙ্গিমায় ক্যান্টিনে প্রবেশ করছেন একে একে। তাই দেখে এক বাঙ্গালী সহকর্মীর মন্তব্য- মা দূর্গার তাহলে এবার নৌকায় আগমন ঘটছে।

ভাবলাম গামবুট হলেও মন্দ না! সহকর্মীকে বলিনি তাহলে হয়তো Bootটা বাট হয়ে যেত। আর কোন ললনা যদি সানি পাজির মতো চিতকার করে বলে উঠতো- ওয়ে, নো ইফস নো বাটস, সির্ফ জাট।তাহলেই সোনায় সোহাগা।
মনে হয়েছিল একবার বলি যে নারী দিবস মানে কি শুধু সেই পারমিতার একদিনের গল্প? নাকি বছরের প্রতিটি দিনেই পুরুষ নারী তালে তাল মিলিয়ে সালসা নাচবেন।

মুখে যতই বলি না কেন fairer sex, better half ইত্যাদি, সত্যিই কি মনে করি আমরা? নাকি এটা হাতে ললিপপ ধরিয়ে ভুলিয়ে রাখার গল্প- একটা দিন দিয়ে মনে করিয়ে দাও যে দশভূজাধারিণীদের জন্য সবাই কতটা উদ্গ্রীব আর তারপরে চাকা যেদিকে গড়াতে চায় সেদিকেই গড়াক। যুগে যুগে যা হয়ে এসেছে তাই হোক- পাল্টাতে গেলে যদি স্বার্থে ঘা লাগে?

Serious কথা বলে ফেললাম বলে পাঠকপাঠিকারা ক্ষমা করবেন- কিন্তু মাঝে মাঝে মনে হয় মেয়েরা নিজেদেরই ঠিক বুঝতে পারে না- এতগুলো ভূমিকায় অভিনয় করতে করতে শেষে কোনটা যে আসল আমি সেটাই ভুলে যায়। সেই হরবোলাটার মতো যে কিনা অন্যের গলা নকল করতে করতে নিজের আসল গলাটাই ভুলে গেছিল।

ভালো থাকবেন মামনিরা!

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s