(২১)


বাপকা বেটা সিপাই কা ঘোড়া কুছ নেহী তো থোড়া থোড়া…

সন্তানকে মা ১০ মাস ক্যাঙ্গারুর মতো বহন করেন- তাই মাতৃ পরিচয় নিয়ে tension কম। কিন্তু পিতৃপরিচয় পায় কি করে! ভুল বললাম ছেলেটা যে বাপের-ই এটা কি করে বোঝা যাবে? মানে ছেলে থাকলে তো বাপ থাকবেই- কিন্তু সেই বাপেরই ছেলে কি করে বোঝা যাবে? বিশেষত আমার ছেলের মতো মাতৃমুখী পুত্র হলে?

পাঠক চিন্তা করবেন না- শিশু অবস্থায় উৎকট উৎকট কান্ড যা করেছেন মনে করে দেখুন! নিজের চোখের সামনে তা যদি পুনর্বার বারংবার সঙ্ঘটিত হতে থেকে তা হলে নিশ্চিন্ত থাকুন প্রোডাক্টটা আপনারই ফ্যাক্টরির।

আমারটা যেমন, একদম বাপকা বেটা- আমি ছোট বেলা থেকেই খুব সুন্দর ঘুমোতে পারি- লোকনাথ বাবার মতো যত্র তত্র সর্বত্র- বাসে, ট্রেনে, বসে, দাঁড়িয়ে- এমনকি মোটর সাইকেলেও! নাহ ভুল দেখেন নি! পূর্বোক্ত বাক্যটির শেষ দুটি শব্দ ঠিকই দেখেছেন। আমি যন্তর পিস। আমার ছেলেটিও এই ব্যাপারে একদম ফটোকপি। বাইকে বসলেই তাঁর চোখ দুটোতে রাজ্যের ঘুম জুড়ে আসে এবং ……

আগে খুব ঘাবড়ে যেতাম- স্বাভাবিকই! পিছনে বসে দুড়ুম করে পড়ে গেলে তো জনগণ মাইকেল জ্যাকসন বলবে আমায়! সারাক্ষণ ধরে জাগিয়ে রাখার চেষ্টা করতাম বিভিন্ন ভাবে! সেই Tom & Jerry-র গল্পে ছিলো না? টম কিছুতে ঘুমোতে পারে না- চোখের পাতায় টুথপিক লাগিয়ে রাখে! তাও ফটাস করে ভেঙে যায়। চোখের পাতা মাথার উপর ক্লিপ দিয়ে আটকে দিলেও-পুট করে খুলে গিয়ে বন্ধ হয়ে যায়!

অতটা ভয়ঙ্কর না হলেও অন্যান্য অনেক টোটকা ব্যবহার করেছি। লাভ হচ্ছিল না- ছেলে নিজেই দেখলাম sollution বার করে নিয়েছে! দুটো option achhe-

১) আশেপাশের যত হোর্ডিং আছে সে- Utterly butterly delicious থেকে শুরু করে গুপ্ত রোগের ফোন নাম্বার সবই- জোরে জোরে পড়ে যাবে- লজ্জার মাথা খেয়ে রেসের ঘোড়ার মতো সামনের দিকে তাকিয়ে বাইক চালিয়ে যাওয়া ছাড়া গত্বান্তর থাকে না।

২) এখন আবার নতুন ব্যামো জুটেছে- একটা picture encyclopaedea কিনে দিয়েছিলাম কি কুক্ষণে- ব্যাস হোর্ডিং না থাকলে সেখান থেকে বেছে বেছে আমার GK-এর কবর খোঁড়ার যোগাড় করে- ভয়ানক গরমের দুপুরে খাঁ খাঁ রাস্তায় ৫০ কিমি স্পিডে বাইক চালাবার সময় কেউ যদি দুম করে জিজ্ঞাসা করেঃ মাউন্ট কিলিমাঞ্জারো কোথায়- তাহলে কাঁহাতক আর গান্ধীজীর শিষ্য হয়ে থাকা যায় বলুন তো! চুপ করে থাকলে প্রশ্ন থামে না! বকা দিলেও কুছ পরোয়া নেই!

অবশ্য আমি যেমন বাইক চালাতে চালাতে ঘুম পেলে হেঁড়ে গলায় শ্যামাসঙ্গীত গাই সেই রকম বিগড়েল ব্যাপার স্যাপার এখনো দেখতে পাই নি বলে একটু চিন্তায় আছি। তবে আমার ছেলে যে আমার জীন নিয়েই পয়দা হয়েছে সেটা সম্পর্কে এক্কেরে নিশ্চিন্ত হয়েছি!

মানুষের মতো মানুষ হতে গেলে একটু পাগল হতে হয়! আর সেই পাগলামির লক্ষণগুলো ছোটবেলাতেই ইতিউতি দেখা দেয়! খালি চোখ খোলা রাখা চাই অবশ্য toothpick না ব্যবহার করলেও চলে!

অতএব পাঠক পাঠিকাগন চোখ কান খোলা রাখুন ঠিক দেখতে পাবেন- আপনার বাবা মায়ের মাথার চুল উঠেই বা কেন গেল আর পেকেই বা কেন গেল- তার কারণগুলো আপনাদের চোখের সামনে জ্বল জ্বল করবে।

পাপের ফল এ জন্মেই খাওয়া যায়! সঙ্গে একটু বিটনুন রাখা প্রয়োজন খালি!

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s