(৫)


পঁচিশ তারিখ পাঁচটার সময় মোহন বাগান ইষ্ট বেঙ্গলকে পাঁচ গোল দিয়েছে। খুব বিতর্কিত বিবৃতি।ইষ্ট বেঙ্গল সমর্থকরা বলছে ধুর ৫-৩ আর ৫-০ এক হল নাকি? মোহনবাগান সমর্থকরা বলে কটা ঢুকেছে সেটা গোন (জনান্তিকে জানিয়ে রাখি আমিও তাই বলছি! হি হি হি!)। না বাবা মেরুকরণ-এ যাচ্ছি না। তাতে পাঠক কমতেই পারে- আজকের এই নিজঢাকবাজনদারদের মরসুমে কে সেই risk নেবে!

আমি বরং একটা বহু পুরোনো গপ্প বলি- নব্বই-এর গোড়ার দিকের কথা- তপন মেমোরিয়ালের হয়ে ক্রিকেট খেলতে বার্ণপুর-এ গেছি- বার্ণপুর ক্রিকেট ক্লাব কলকাতা লিগ খেলে। ট্রেনে চেবে অদ্দুর গিয়ে অনাদের আতিথেয়তা নেওয়া! সে ত এলাহী ব্যাপার স্যাপার- ঢালাও খাওয়া দাওয়া আর পান পর্ব! আমাদের সঙ্গে গিয়েছিল ক্লাবের মালি, নিরঞ্জন- প্রথম রাতে বেগরবাঁই করে নি বিশেষ কিন্তু পরদিন আমরা ২২০তে অল আউট হবার পর তার বড় দুঃখ হল! পাঁচ পেগ হুইস্কি পেটে ফেলে তাকে পাঁচ-এ পেল- দেখি খাটের উপর বসে ডুকরে কাঁদছে- আমার তখন বয়স অল্প, জিজ্ঞাসা করলাম হল কি? বলে ওদের ওই আলুভাতে পেসারটাকে কোন আক্কেলে তোমরা পাঁচখানা উইকেট দিলে? কাল তোমাকে পাঁচ উইকেট পেতে হবে! আমি বলি দেখব- বলে না দেখলে হবে না! আমার পাঁচবছরের ছেলে দিব্যি নিতেই হবে! আচ্ছা গেড়ো!

অমিতাভ দাকে বলে তুমি কথা দাও কাল পাঁচখানা ক্যাচ ধরবে! অমিতাভ দা বলে যদি বেশি আসে ছেড়ে দেব? উত্তর নেই! বলে পাঁচ পেগ খেয়েছি আমি গুনে গুনে তা বলে কি আমি মাতাল হয়েছি? আমার দুঃখ কেউ বুঝছ না তোমরা- পাঁচ বছর ধরে ক্লাবে আছি! আমার বাবার মতো ক্লাব (?)। কাল যদি মিনিমাম পাঁচ রানে না জিততে পারি তাহলে পাঁচটা উইকেট বুকে করে পিচের মাঝখানে পাঁচ হাত গর্ত খুঁড়ে আমায় কবর দিয়ে যেও! আমি আর বাড়ি ফিরব না! যত রাত বাড়ে তার মাতলামোও বাড়ে- বলে আমার পাঁচ খানা আঙ্গুল কেটে নিও যদি না জিতি!(কেলো করেছে) আমাদের পেট তো হাসতে হাসতে পাঁচটুকরো হয়ে যাবার জোগাড়। শেষে থাকতে না পেরে শৈবাল দা বলল- ও রে নিরঞ্জন এবার ঘুমো কাল পাঁচটায় উঠতে হবে! সারা রাত ধরে তাও হুঁ হুঁ করে ফুঁপিয়ে গেল। সকালে উঠে এক গাল হেসে বলে কাল বোধহয় একটু বেশি হয়ে গেছিল, হে হে!

তার বিধান হলো পাঁচ বার কান ধরে ওঠ বোস! যদিও ম্যাচটা হেরেছিলাম এবং এক বেশ ভয়ঙ্কর চোটের স্মৃতি নিয়ে বার্ণপুর ছেড়েছিলাম, কিন্তু পাঁচের গেরোটা মনে গেথে গেছিল। আজ ৫x৩ বছর পরেও ছেলেবেলার একটা স্বপ্নকে সত্যি হতে দেখে আবার চেগে উঠলো।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s