(৫৭)

চারিদিকে হইচই পড়ে গেছে… বিশৃঙ্খলা…ভূমিকম্প ঝঞ্জাবাত আমবাত কেয়াবাত কেয়াবাত কেয়াবাত! এখন আপাত বুদ্ধিদীপ্ত এবং বিবাহোদ্দীপ্ত পুরুষ এবং তাঁদের আপাত জীবন সঙ্গী মহিলারা মিলে সাতের জায়গায় সাড়ে সাত পাক দিচ্ছে। শাড়ি পড়া হচ্ছে আড়াই-এর জায়গায় সাড়ে সাত প্যাঁচ মেরে। সৌর মণ্ডলে নেপচুনের ফরচুন চুপসে গিয়ে এখন মোটে সাড়ে সাতখানা গ্রহই রয়ে গেছে। ঔরংজেবের এক অবৈধ সন্তানের খবর পাওয়া গেছে যিনি প্যারালাল ইউনিভার্সে মাগল সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠা করে হ্যারি পটারের বন্ধু হারমেয়নির জম্ম দিয়ে সাড়ে সাতজনের মোগলাই বংশ ঢুকিয়ে দিয়েছেন। আরও কতো কি, এখন ইডেন উদ্যানে দাদা আউট হলে পাবলিক চেল্লায় আর শাহরুখের শুকনো ছোবরা মার্কা থোবড়া থেকে নিঃসৃত উড়ন্ত চুমু গুনে আকাশে বাতাসে চারের জায়গায় সাড়ে সাত চাঁদ লেগে যায়। আই পি এলের সর্বময় কর্তা রাজীব শুক্লা আবার ঘোষণা করেছেন যে যে ভেন্টো গাড়িটি পড়ে পড়ে মাছি তাড়ায়, ফাইনালে তার বনেট তুবড়ে দিতে পারলে এক শটে সাড়ে সাত রান পাওয়া যাবে। সুরজ বরজাতিয়া এত দিন পরে ঘোষণা করেছেন যে তিনি হাম সাথ সাথ হ্যায়-এর একটি সিক্যুয়াল করবেন ‘হাম সাড়ে সাত হ্যায়” যেখানে রঘুবীর যাদব বমন ইরানির পুত্রের ভূমিকায় অভিনয় করবেন এবং সাড়ে সাতখানি ফিল্ম করা বিবেক ওবেরয় ও সাড়ে সাত বছর ধরে হিট না দেওয়া রাণী মুখার্জীকে নিয়ে শাদ আলি নতুন ছবি করবেন “সাড়ে সাতিয়া”। গাড়ি বিক্রি কমে যাবার আশঙ্কায় অটোলোন কোম্পানিগুলি সুদের হার এক ঝটকায় সাড়ে সাত পার্সেন্টের চক্রবৃদ্ধি সুদে ধার দিচ্ছে। আমাদের রাখি বহেন… যিনি দেওয়ালে এবং গায়ে পোস্টার বা তকমা সাঁটিয়ে বেরান, নতুন ফরমান জারি করেছেন যে রবিবার ২৪-এর জায়গায় ৩৬ ঘণ্টার হবে যাতে সাড়ে সাত দিনের সপ্তাহে রবিগুরু কবিন্দ্রনাথের জন্য আধবেলা ভরপেট খেয়ে কেত্তন গাইতে পারেন রাজ্যবাসী ট্রাফিক সিগন্যালে সিগন্যালে। আর যে চলমান রোবটের উপর আমাদের পাগড়ি রক্ষার দায়িত্ব তিনি নতুন তত্ব হিসাব কষে বার করেছেন যেন ইউ পি এ সরকার মোট আট নয়, সাড়ে সাত বছর রাজত্ব করেছেন (বাকি সময়গুলি উনি চোখ খুলে ঘুমোচ্চিলেন তাই ধরতে পারেন নি)।

পাঠক পাঠিকাগণ (আহা কতদিন পর আপনাদের নাম ধরে ডাকলাম গো! আহ্লাদ হল নি?) ঘাবড়াবেন না আসলে কিসসু না, রাষ্ট্রায়ত্ত্ব তৈল বিতরক সংস্থাগুলি গুড়ুম করে সাড়ে সাত টাকা পেট্রোলের দাম বাড়িয়ে দিয়ে সাড়ে সাতের মূল্য দিয়েছে বাড়িয়ে। তা জন্মজন্মান্তর ধরে সাবসিডিতে বিলাসবহুল গাড়ি চালিয়ে অভ্যস্ত ভারতীয়রা, যারা বিশ্ব অর্থনীতির সাড়েসাত পাঁচ নিয়ে কক্ষনো ভাবেন নি তাদের বাজেট ছক্কার জায়গায় সাড়ে সাতের খোঁজে চলে গেলে বিগড়ে তো যেতেই পারে। সকলে তখন নিশ্চিন্তে ভুলে যান যে রাজনীতির সাড়ে সাত সতেরোর কারণে বিশ্ব বাজারে তেলের মূল্য বৃদ্ধি এবং টাকার মূল্য হ্রাসের পরেও সাড়ে সাত মাস ধরে পেট্রোলের দাম বাড়ে নি।

যাক গে গিয়া, ঘটনা টটনা বিশেষ ঘটে টটে নি, অবশ্য ঘটতে কতক্ষণ? না ঘটলে কি আর ফিস ফাস হবে না? অবশ্য এটিকে আগাম ফিসফাস নাম দেওয়াই যায়। তবে ছোট্ট এট্টু ব্যাপার।

দাম বাড়ার পরের দিন তেল ভরতে গিয়ে দেখি পেট্রোল পাম্পের কর্মীরা মালিকের উপর গলা সাড়ে সপ্তকে চড়িয়ে চেল্লাচ্ছে ছুটি দিতে হবে বলে আগের দিন ১২টা অব্ধি তেল বিক্রয় হয়েছে সেই সব মানুষের জন্য যারা মনে করেন এই বেলা তেল কিনে সাড়ে সাতটাকা বাঁচিয়ে তো নিই, পরে সে টাকায় নাহয়ে একটা এক্সট্রা বিড়ি ফোঁকা যাবে। স্বভাবতই সকাল সাড়ে সাতটায় তারা যারপরনায় বিপর্যস্ত।

সেই তালে আমিও একটু চেল্লাচেল্লি করে নিলাম পাম্প অ্যাটেন্ড্যান্টের উপর বেলাইনে কেউ ঢুকে তেল নিয়ে নিচ্ছিল আর সেও দিয়ে দিচ্ছিল বলে। রিপাবলিকের নাগরিক হয়ে পাবলিককে সঙ্গে নিয়ে পাবলিকালি বাওয়াল করার মত আরাম আর যে কিছুই নেই। সে জীবনের হিসাবের যতই সাড়ে সাত টা বেজে যাক না কেন।

Advertisements

2 thoughts on “(৫৭)

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s