(৬৩)

লক্ষ্ণৌতে যাব আর নবাবি করব না এ আবার কেমন তর কথা? তেমনই কোলকেতায় এসে বাংলা ছবি দেখব না, তা হয় নাকি? তা গেলাম অধুনা বহুল প্রচারিত অল্প সময়ে বহুল বিখ্যাত এক পরিচালকের তিন নম্বর ছবি দেখতে। তা আগের দুটিতে উনি যাই করেছেন পাবলিক হাঁই হাঁই করে উদ্বাহু হয়ে নেচেছে। আমি অবশ্যই কখনই আম পাবলিক নই, যদিও আম খেতে আমি যারপরনাই ভালবাসি। কিন্তু আম পাবলিকের পছন্দ কক্ষনই আমার পছন্দ হয় না। সে খেলাই হোক বা সিনেমা। যাই হোক গে যাক, পাঠক পাঠিকা আমাকে আঁতেল বলার আগেই আজকের ফিস ফাস সুলভ ঘটনাটি ঘটা করে পাতে পেড়ে দিয়ে কেটে পরি।

দুই বন্ধু বন্ধুনী-র সঙ্গে বহুদিন ধরেই পরিকল্পনা করা হচ্ছে এই সিনেমাটি দেখতেই হবে, কারণ নায়ক ভাল অভিনয় করছেন আজকাল। বন্ধুনীর অনেক অসুবিধা…তিনি থাকেন সাত সমুদ্র তেরো নদীর পারে দক্ষিণ কলকাতা শহরতলীর একটি সোনায় বাঁধানো জায়গায়… বয়সও কম। তাই এসে থেকেই আশা পারেখ-এর মত “আচ্ছা তো হাম চলতে হ্যায়” গাইতে শুরু করেছে। আর এক যে বন্ধু তার তিনকাল গিয়ে এককাল ঠেকেছে দরজার দোর গোড়ায়। সে আবার তৈলাক্ত বাঁশে চড়ে আসছেন… এক কদম আগে তো দো কদম পিছে। তার মাঝে এক ডিম্পল কাপাডিয়ার জাতীয় পুরস্কার প্রাপ্ত ফোন এসে হাজির। কালো পোশাকে সেই ফোন রিং টোন বাজিয়ে বলে উঠল, “হ্যাঁ গো তোমরা আমায় মিস করছ তো?” নেহাত আমায় কলায় নি, তাহলে নির্ঘাত উত্তর হত, “মিস করছো করো ছড়িও না”।

যাকগে গিয়া, ছবি ছোবল দিয়ে শুরু করে শেষ হবার আধ ঘণ্টা আগেই থেকেই সি এন জি ফুরিয়ে গোঁ গোঁ করতে শুরু করেছে। বন্ধুনীটি সুযোগ বুঝে সেন্টিমেন্টাল বেহালা বাজিয়ে বেরিয়ে এলেন। আমি আর বন্ধু বলাবলি করলাম যে এটা ঠিক হচ্ছে না… এত রাতে একটি মহিলাকে একা ছেড়ে দেওয়া ঠিক নয়। তাই যতক্ষণ ধরে সাহেব বিদ্যাসাগর সেতুর রেলিঙটাকে রেসকোর্সের ঘোড়া ভাবতে লেগেছে। আমি এক লাফ দিয়ে দৌড়ে এলাম। আর আমার ত্রিকালজ্ঞ বন্ধু কুড়ি কিমি হাঁটা।
তারপর শিভালরির বন্যা বইয়ে দিয়ে রাস্তা পার করে এসে দাঁড়ালাম দুজনে দুই ধারে দুই সেফটিপিনের মত। কিন্তু বাস আর আসে না। আর সেই জায়গার নাম শুনে কোন ট্যাক্সি যেতে চায় না। ওদিকে বন্ধুনীর ক্লাইম্যাক্স নিরুপা রায়। আমরাও নিরুপায় হয়ে বললাম, “চল তোকে রুবী অবধি ট্যাক্সি করে এগিয়ে দিয়ে আসি, তারপর সেখান থেকে আবার রিলে ট্যাক্সি ধরে নিস”।

যেমন বলা তেমনই কাজ, চড়ে বসলাম তিনজনে ট্যাক্সিতে। তারপর বালোতেলি আর পিরলো করে গোলের কাছা কাছি থুড়ি চিংড়িহাটায় পৌঁছে দেখি পিছনে বাস আসছে সুদূরের পিয়াসী। বন্ধুনী তখন আবিদা পরভিন… “থামা থামা, যাই যাই, ওই তো ওই তো!” কত কিছুর মধ্যে চিংড়িহাটার স্ট্যান্ডে বাসের কিয়তিদূরে ট্যাক্সি দাঁড় করালাম। ওমা সে তখন, আফটার ডিনার স্পিচ দিতে শুরু করেছে। আমি বললাম শিগগির বাসে ওঠ। হুঁশ ফিরে পেয়ে নামতে নামতেও গান গায়, “এমা যা বাস চলে যাবে… কি করে ধরব… ইত্যাদি” আমি তখন উলটো দিকের গেট খুলে নেমে ট্যাক্সিওলার প্যানপ্যানানির তোয়াক্কা না করে নেমে এসে ম্যাটাডোরের মতো হাত তুলে সদ্য চলন্ত বাসের দিকে হেঁটে গেলাম বীরবিক্রমে… আর সেও পি সি সরকারের ম্যাজিকের মত তড়াক করে থেমে গেল। ওমা দেখি ত্রিকালজ্ঞও নেমে এয়েছে বাসের দিকে হাত দেখিয়ে। আমি তাকে এক দাবড়ানি দিলাম, “গাড়িতে ব্যাগগুলো ফেলে চলে এলে যে বড়?” সে অমনি সুড়সুড় করে ফিরে গেল ট্যাক্সির ছেলে ট্যাক্সিতে।

সে যাই হোক, আমি ফিরে আসতেই, ট্যাক্সিওলা সমাজ সংস্কারক বক্তৃতা শুরু করল, উলটো দিকে নামা কত বিপজ্জনক কাজ, এটা করা উচিত না, ইত্যাদি এবং প্রভৃতি। মিনিট তিন চুপ করে থাকলাম। ট্যাক্সি ঘুরিয়ে নিয়েছি এদিকে গন্তব্যের দিকে। শেষে আর পারলাম না যখন সে বলে “কবে মাথা দিয়ে কাজ করবেন?” তার মুখের দিকে তাকিয়ে স্মার্টলি বললাম, “যব আপ জ্যায়সা উমর হোগি তো আপনে আপ শুধর যায়েঙ্গে”। ব্যাস তারপর ট্যাক্সি থেকে নামা অব্ধি সে একটাও কথা বলে নি। শুধুমাত্র অতি পাকা ত্রিকালজ্ঞ তার চুইংগাম দাঁতের ফাঁক দিয়ে ফুস ফুস করে হাসতে লাগলো। আর আমরাও যে যার ঘরের ছেলে ঘরে ফিরলাম, মাথায় তখন নতুন স্লোগান, “করবে কর, নড়িও না” বা “চড়বে চড়ো, গড়িও না” ইত্যাদি।

8 thoughts on “(৬৩)

  1. এ ব্যাপারে আম্মো একমত সঞ্জীব চাটুজ্যে ভাব এক্কেরে গিজগিজ কচ্ছে। কিন্তু দাদা একটা প্রশ্ন ফিলিমটার নাম কি? মানে কোল্কাতায় ফিল্লে আমি তালে আর ওটা দেখার রিস্ক নেবো না।

    Like

  2. ১-৬২ তো পড়া হয়নি, পড়লাম ৬৩! চমৎকার লেগেছে!! লেখকের নিজস্ব একটা স্টাইল আছে বলে আমার মনে হলো। এই একই তালে ও তানে এগিয়ে গেলে এই সিরিজটা একখানা বই আকারে প্রকাশ করা যাবে এবং তা আদরণীয় হবে বলেই আমার মনে হচ্ছে।
    ধীরে ধীরে আগের পর্বগুলো পড়ার ইচ্ছা আছে, পারবো কিনা, সময় হবে কিনা তার উপরে নির্ভর করছে।
    শুভেচ্ছা রইল।

    Like

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s